আলুর পুষ্টিগুণ

আলুর পুষ্টিগুণ

‘ মাছে-ভাতে বাঙালি ‘এই প্রবাদ তো সর্বজন পরিচিত। তবে বাঙালির খাবারের তালিকায় ভাতের পরেই কিন্ত আলুর স্থান। প্রতিদিনের রান্নায় আলু ছাড়া যেন চলেই না। বাসার খাদ্য তালিকায় আলুর ভর্তা, ভাজি, তরকারি কিছু না কিছু থাকবেই। এছাড়াও আলু পুরি, চপ আর ফ্রেঞ্চ ফ্রাই তো রয়েছেই। এখন প্রশ্ন হলো রোজ আলু খাওয়া কতটা উপকারী

আলুর গুন

# আলুতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে কার্বোহাইড্রেট অর্থাৎ শর্করা। আর তাই ভাতের মতোই আলু শরীরে যোগায় কাজ করার শক্তি।

# আলুর খোসায় রয়েছে আঁশ বা ফাইবার, যা আমাদের হজমে সাহায্য করে।

# আলুতে পাওয়া যায় ভিটামিন সি, যা আমাদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়। এছাড়া আছে পটাসিয়াম, যা হৃদপিণ্ড, স্নায়ু এবং কিডনির জন্য উপকারী। আরও পাওয়া যায় ম্যাংগানিজ যা মস্তিষ্ক এবং স্নায়ু সচল রাখে এবং ভিটামিন বি কমপ্লেক্স।

কিভাবে খাবেন আলু

অনেকেই ভাবেন এক বাটি ফ্রেঞ্চ ফ্রাই খেলে পেয়ে যাবেন আলুর সব পুষ্টিগুণ।তবে তা একেবারেই ঠিক না। বেশীরভাগ সময় আমরা আলুকে আরও সুস্বাদু করার জন্য এতে প্রচুর লবণ এবং তেল যোগ করি, যা আলুর যাবতীয় গুনাগুণকে নষ্ট করে দেয়। আর সাথে সাথে স্বাস্থ্যকর আলু হয়ে উঠে চর্বির আস্তানা।

আলু খাওয়ার সবচেয়ে স্বাস্থ্যকর উপায় হল সেদ্ধ কিংবা বেইক করা। যারা আলু ভর্তা খেতে ভালোবাসেন, তাদের জন্য এটা নিঃসন্দেহে সুখবর! এছাড়া বেইক করতে চাইলে সামান্য তেল ছিটিয়ে, অল্প পরিমাণে লবণ এবং ধনে পাতা দিয়ে বেইক করে নিতে পারেন।

তবে আপনি যদি স্বাস্থ্য সচেতন হন, তাহলে দৈনিক খাবারে মাঝারি আকারের একটি আলুর অর্ধেকের বেশি না খাওয়াই ভাল আর সঙ্গে রাখুন শাক জাতীয় সবজি। ব্যস, হয়ে গেল ঝটপট ব্যালেন্সড ডায়েট!