ভ্রমনে বমিভাব হলে করণীয়

ভ্রমনে বমিভাব হলে করণীয়

ছুটি পেলে অনেকেই পছন্দ করেন লং জার্নিতে যেতে। তবে এতে সমস্যা হয়ে দাঁড়াতে পারে বমিভাব। গাড়িতে উঠলেই বমির সমস্যায় ভুগেন অনেকেই। তবে ভ্রমণের মাঝে এমন বমি বমি লাগলে তো আনন্দটাই মাটি হয়ে যায়। কিন্ত কিছু ব্যপারে একটু সচেতন হলেই দূরে থাকা যায় এই সমস্যা থেকে। আসুন জেনে নিই ভ্রমনে বমিভাব হলে করণীয় কি কি।

১. গাড়িতে ওঠার আগে এড়িয়ে চলুন ঝাল-মশলাযুক্ত খাবার, কোমল পানীয় বা চিপস ইত্যাদি। যারা বমির সমস্যায় ভোগেন প্রয়োজনে তারা হালকা কিছু খেয়ে গাড়িতে উঠতে পারেন।আর যাত্রাপথে ভারী খাবার না খাওয়াই ভালো।

২. ট্রেন, বাস বা গাড়ি যেদিক মুখ করে সামনে এগোয় তার উলটো দিক ফিরে কখনোই বসবেন না। এতে বমিভাব আরো বেশি হয়। গাড়ি যেদিকে যাচ্ছে সেদিকে মুখ করে বসুন।

৩. বাসে কিংবা গাড়িতে পেছনের দিকের সিটে বসার ব্যাপারে সতর্ক থাকুন।কেননা পেছনের দিকে সিটে ঝাঁকুনি বেশি লাগে যা অনেক সময় বমির কারণ হয়ে দাঁড়ায়।

৪. বিরত থাকুন অতিরিক্ত ঘ্রাণ বা সুগন্ধযুক্ত খাবার থেকে। ভ্রমণের সময় সাথে অবশ্যই পানি রাখুন এবং পর্যাপ্ত পরিমাণে পানি পান করুন। দারু চিনি, লবঙ্গ ও টক জাতীয় খাবার বমিভাব দূর করে। যাত্রাপথে সাথে রাখতে পারেনএগুলো।

৫. চলন্ত অবস্থায় বিরত থাকুন বই পড়া, মোবাইলে গেম খেলা বা নেট ব্যবহার থেকে। কেননা এর ফলে সমস্যা বেড়ে যেতে পারে।

৬. ভ্রমণের সময় মনকে শান্ত ও প্রফুল্ল রাখার চেষ্টা করুন। বমি হতে পারে এই কথা ভুলে থাকুন। এক্ষেত্রে মনকে প্রফুল্ল রাখতে গান শুনতে পারেন।

৭. ভ্রমণের সময় কখনই ধূমপান করবেন না। এড়িয়ে চলুন পান-সুপারি এবং অন্যান্য নেশা জাতীয় দ্রব্যও।

৮. সমস্যা খুব বেশি হলে যাত্রা শুরু আগে খেয়ে নিতে পারেন বমি নিরোধক ট্যাবলেট। তবে যেকোন ওষুধ সেবনের আগে অবশ্যই চিকিৎসকের পরামর্শ করে নিন।

৯. যাত্রাপথে অন্য যাত্রীকে বমি করতে দেখেও অনেকের বমি হতে পারে। তাই যাত্রীদের দিক থেকে মনোযোগ সরিয়ে অন্য দিকে মনোযোগ দিন। এক্ষেত্রে জানালার পাশে বসে উপভোগ করতে পারেন বাইরের সৌন্দর্য।