সতর্ক থাকুন গোছলে

সতর্ক থাকুন গোছলে

লম্বা একটা গোসল কাটাতে পারে আপনার সারাদিনের ক্লান্তি। আর ভাল একটা গোসলের জন্য সাবানের সঙ্গে লুফা তো লাগবেই। কিন্তু আপনি জানেন কি এই লুফার জালেই লুকিয়ে রয়েছে ভয়াবহ সব ব্যাক্টেরিয়া। আর তা থেকে হচ্ছে মারাত্মক সব চর্মরোগ।দেশের আটানব্বই শতাংশ চর্মরোগ বিশেষজ্ঞই নিষেধ করছেন এই লুফা ব্যবহার করতে।

একটা সময়ে বাঙালির গোসলের ঘরে গা ঘষতে ব্যবহার করা হত ধুঁধুলের খোসা। আর এখন সে জায়গাটা নিয়ে নিয়েছে রঙিন সিন্থেটিক লুফা।কিন্তু আপনি জানেন কি এই নরম, রঙিন লুফাতেই রয়েছে সর্বনাসের বিষ!

বিশেষজ্ঞদের মতে, বেশিরভাগ সময়ই গোসলের পর ভিজে লুফা বাথরুমে রেখে দেওয়া হয়। আর বাথরুমের স্যাঁত্‍‍‍‍সেতে পরিবেশ লুফায় ব্যাক্টেরিয়ার বংশবৃদ্ধির জন্য উপযুক্ত। মাত্র কয়েক ঘণ্টার মধ্যে লুফার জালে নিজেদের সংখ্যা বাড়ায় ব্যাক্টেরিয়া। ইস্টও তৈরি হয় ভিজে লুফার মধ্যে। আর এই লুফা দিয়ে গা ঘষলেই ত্বকে সংক্রমণের শুরু।আর শেভিংয়ের পর এই লুফা ব্যবহার করলে ফলটা হয় আরও মারাত্মক।

তবে এর উপায় হিসেবে চিকিৎসকরা বলছেন লুফা ব্যবহার করার ক্ষেত্রে নজরে রাখতে হবে কয়েকটা বিষয় যেমন- প্রতিবার ব্যবহারের পর ভাল করে পরিষ্কার করতে হবে লুফাটি। একটুও সাবান যাতে লেগে না থাকে সেদিকেও রাখুন নজর। এরপর পুরোপুরি শুকিয়ে নিন লুফা। বাথরুমের ভেজা পরিবেশে কখনই ফেলে রাখবেন না লুফা। আর অবশ্যই কয়েক মাস পরপরই বদলে ফেলুন আপনার গা ঘষার লুফা। লুফায় দুর্গন্ধ হলে বা রঙে পরিবর্তন হলে সঙ্গে সঙ্গে বদলে ফেলুন সেটি।