অ্যাভেঞ্জার্স: ইনফিনিটি ওয়ার এখন সিনেপ্লেক্স ও যমুনায়

অ্যাভেঞ্জার্স: ইনফিনিটি ওয়ার এখন সিনেপ্লেক্স ও যমুনায়

মার্বেল ভক্তদের অপেক্ষা অবশেষে ফুরিয়েছে। বহু প্রত্যাশার সঙ্গে অবশেষে রিলিজ হয়েছে অ্যাভেঞ্জার্স: ইনফিনিটি ওয়ার। বিশ্বব্যাপী আজ শুক্রবার মুক্তি পেয়েছে সিরিজের ১৯ তম সিনেমা ‘অ্যাভেঞ্জার্স: ইনফিনিটি ওয়ার’। বাংলাদেশের স্টার সিনেপ্লেক্স ও যমুনা ব্লকবাস্টারেও ছবিটি আজ থেকে দেখানো হচ্ছে। স্টার সিনেপ্লেক্সে বৃহস্পতিবারই প্রথম দুই দিনের সব শো’র টিকিট বিক্রি হয়ে যায়। শুধু বাংলাদেশেই নয়, বিশ্বজুড়েই ছবিটিকে ঘিরে চলচ্চিত্রপ্রেমীদের উন্মাদনার শেষ নেই।

একমাত্র সুযোগ যেখানে, একসঙ্গে রুপোলি পর্দায় হাজির মার্ভেলের গোটা দুনিয়া। লক্ষ্য একটাই, থ্যানোসের হাত থেকে বিশ্বকে বাঁচানো। ৬টি ইনফিনিটি স্টোন দখলে নিতে পৃথিবীতে হামলা চালাবে থ্যানোস। আর অসীম শক্তিশালী ভিলেন’কে রুখতে একসঙ্গে লড়তে দেখা যাবে আয়রনম্যান, ক্যাপ্টেন অ্যামেরিকা, থর, হাল্ক, ডক্টর স্ট্রেঞ্জ, ব্ল্যাক উইডো, স্পাইডারম্যান, ব্ল্যাক প্যান্থার এবং গার্ডিয়ান্স অব দ্য গ্যালাক্সি-র মতো সুপারহিরো চরিত্ররা।

এই ছবিতে প্রাণ হারাতে দেখা যেতে পারে প্রথম অ্যাভেঞ্জার খ্যাত ক্যাপ্টেন আমেরিকা, আয়রনম্যান, থর, লোকি, ভিশন, ড্রাক্স, ব্ল্যাক উইডো, হক আই, ওয়ার মেশিন, নেবুলা। এই প্রথমবারের মতো অ্যাভেঞ্জারের সঙ্গে যুক্ত হতে যাচ্ছেন গার্ডিয়ান অব দ্য গ্যালাক্সির সদস্যরা।

যৌথভাবে অ্যাভেঞ্জার্স: ইনফিনিটি ওয়ার ছবিটি পরিচালনা করেছেন দুই ভাই জো রুশো ও অ্যান্থনি রুশো। তারা এর আগে ‘ক্যাপ্টেন আমেরিকা’ সিরিজের দুটি ছবি পরিচালনা করেন। দুই ভাই জানিয়েছেন, ২০০৮ সালে ‘আয়রন ম্যান’ ছবির মাধ্যমে যে গল্প শুরু হয়েছিল, ‘অ্যাভেঞ্জার্স: ইনফিনিটি ওয়ার’-এর মাধ্যমে এর সমাপ্তি হবে। আর এজনই ছবিটিকে ঘিরে দর্শকদের কৌতুহলের মাত্রাটা একটু বেশি। বিশ্লেষকদের ধারণা, বক্স অফিস মাত করার পাশাপাশি এ বছরের অন্যতম সফল ছবির তালিকায় ঠাঁই পেতে যাচ্ছে এ ছবি।